অফিসযাত্রীদের জন‍্য সুখবর, এবার ৫ ঘণ্টার পথ আসা যাবে মাত্র দেড় ঘণ্টায়| Osprey Waterways will solve transport problem during office hours in kolkata | kolkata

Nation News of India


অফিসযাত্রীদের জন‍্য সুখবর, এবার ৫ ঘণ্টার পথ আসা যাবে মাত্র দেড় ঘণ্টায়

পয়লা জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে চন্দননগর টু কলকাতার মিলেনিয়াম ঘাট পর্যন্ত দ্রুতগতির জলযান পরিষেবা

#কলকাতা : একে তো পেট্রোল-ডিজেলের দাম নিত‍্য দিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। তার ওপর আবার সড়ক পথে রোজের সঙ্গী যানবাহন সমস্যা! জেলা থেকে কলকাতায় রোজের যাতায়াতটাই মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে সাধারণ মানুষের। কর্মস্থলে সময় মত হাজিরা না পড়লে আবার ছাঁটাইয়ের লাল চোখ। সব মিলিয়ে কোভিড পরিস্থিতিতে জীবন ওষ্ঠাগত।

জন-সাধারণের জীবনে গন্তব্যে যাতায়াতের ক্ষেত্রে কিছুটা স্বস্তির প্রলেপ নিয়ে আসছে অসপ্রে ওয়াটার ওয়েজ। পয়লা জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে চন্দননগর টু কলকাতার মিলেনিয়াম ঘাট পর্যন্ত দ্রুতগতির জলযান পরিষেবা। সোম থেকে শুক্রবার ব্যস্ত অফিস টাইমে এই দ্রুতগতির জলযান চন্দননগর থেকে কলকাতা পৌঁছে দেবে মাত্র ঘণ্টা দেড়েকে। সকাল ৮টায় চন্দননগর থেকে যাত্রা শুরু করে শেওড়াফুলি, দক্ষিণেশ্বর ছুঁয়ে কলকাতার মিলেনিয়াম জেটিতে পৌঁছবে সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ। অফিস ফেরত বাড়ি ফেরার সময়ে এই দ্রুতগতির জলযান মিলেনিয়াম ঘাট ছাড়বে বিকেল ৪টের সময়ে। চন্দননগর পৌঁছবে  বিকাল ৫ টা ৪৫ মিনিট নাগাদ।

সাধারণভাবে চন্দননগর কিংবা ব্যান্ডেল থেকে এখন যে জলযান দিনের ব্যস্ত সময়ে কলকাতা যাতায়াত করে তাতে সময় লেগে যায় সাড়ে ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা। ঘণ্টায় ১০ কিলোমিটার বেগে চলা সাধারণ জলযানে কলকাতা পৌঁছতে দিনের অনেকটা সময়ই চলে যায় যাত্রীদের।

অসপ্রে ওয়াটার ওয়েজের দ্রুতগতির জল পরিবহণ সেবা চালু হলে ব্যান্ডেল, চুঁচুড়া, হুগলি-সহ পার্শ্ববর্তী জেলার বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষের সঙ্গে কলকাতার যোগাযোগ সহজ হবে বলে মনে করছেন অসপ্রে ওয়াটারওয়েজের কর্ণধার অঞ্জন সিনহা। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কেবিনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আপাতত ৬৬ শতাংশ যাত্রী নিয়েই যাত্রা শুরু করবে দ্রুতগতির এই জলযান। অদূর ভবিষ্যতে রাজ্য পরিবহণ নিগমের সহায়তায় ব্যারাকপুর থেকে মিলেনিয়াম ঘাট পর্যন্ত দ্রুতগতির জল পরিবহণ ব্যবস্থা চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে অসপ্রে ওয়াটার ওয়েজের। বর্তমানে কলকাতা থেকে গঙ্গাসাগর পর্যন্ত ক্রুজ পরিষেবা রয়েছে সংস্থার।

PARADIP GHOSH


Published by:
Rukmini Mazumder

First printed:
June 26, 2020, 3:35 PM IST

পুরো খবর পড়ুন